এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ মামলার বিচারে আদালত পরিবর্তন হাইকোর্টে আবেদন করায় স্বাক্ষীগ্রহণ হয়নি

প্রকাশিত: ২:৪৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২১

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ মামলার বিচারে আদালত পরিবর্তন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করায় আজ রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) স্বাক্ষীগ্রহণ কসিরা হয়নি। এর আগে ৮ আসামীকে কঠোর নিরাপত্তায় আদালতে হাজির রাহয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম। 

গত ৩ ফেব্রুয়ারি বুধবার আদালত পরিবর্তনের জন্য হাইকোর্টে আবেদন করেন মামলার বাদী। আবেদনের পক্ষে আইনজীবী হিসেবে রয়েছেন ব্যারিস্টার সাবরিনা জেরিন ও ব্যারিস্টার এম আব্দুল কাইয়ুম লিটন। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো.মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আবেদন শুনানির জন্য আজ বৃহস্পতিবার উপস্থাপন করা হবে জানিয়ে আব্দুল কাইয়ুম লিটন বলেন, বর্তমান আদালতে ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশঙ্কা থেকে বাদী এ আবেদন করেছেন। তিনি আরও জানান, ফৌজদারি কার্যবিধির ৫২৬ ধারায় আদালত পরিবর্তনের এই আবেদন করা হয়। আবেদনে সিলেটের অন্য কোনো ট্রাইব্যুনালে বিচারের জন্য মামলাটি যেন বদলির আদেশ দেয়া হয়- সে প্রার্থনা করা হয়েছে। এ মামলায় আট জনকে অভিযুক্ত করে গত ৩ ডিসেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। তারা হলেন- সাইফুর রহমান, শাহ মাহবুবুর রহমান ওরফে রনি, তারেকুল ইসলাম ওরফে তারেক, অর্জুন লস্কর, আইনুদ্দিন ওরফে আইনুল ও মিসবাউল ইসলাম ওরফে রাজন, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান ওরফে মাসুম। আট আসামিই বর্তমানে কারাগারে আছেন। গত ১৭ জনুয়ারি এ মামলায় অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন সিলেটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মোহিতুল হক। মামলাটি বতর্মানে সাক্ষ্যগ্রহণ পর‌্যায়ে রয়েছে।