হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বাংলাদেশের জন্য চরম হুমকি: বাবুনগরী

প্রকাশিত: ৮:০০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৯, ২০২০

সিলেট টাইমস ডেস্কঃ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদকে বাংলাদেশের জন্য চরম হুমকি হিসেবে মন্তব্য করেছেন হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী। সরকারকে এদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।

রোববার (৮ নভেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে হেফাজতের মহাসচিব এমন মন্তব্য করেন।

মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরী শনিবার দেশের বিভিন্ন স্থানে ঐক্য পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশের প্রসঙ্গে বাবুনগরী বলেন, বিক্ষোভ সমাবেশে ঐক্য পরিষদের উগ্র কর্মীরা হেফাজতে ইসলাম, চরমোনাই, আলেম-উলামা ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক স্লোগান দিয়েছেন।

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, জাগো হিন্দু পরিষদ দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা তৈরি করে আধিপত্যবাদী শক্তির ছত্রছায়ায় হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠা করতে চায় বলে অভিযোগ তার।

হেফাজতের মহাসচিব বলেন, ‘হেফাজতে ইসলাম দেশের সর্ববৃহৎ অরাজনৈতিক ঈমান-আকিদাভিত্তিক সংগঠন। লক্ষ কোটি মুমিন মুসলমানের প্রাণের সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। হেফাজতকে নিয়ে উসকানিমূলক সন্ত্রাসী স্লোগান দিয়ে চরম ধৃষ্টতা দেখিয়েছে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। হেফাজতকে নিয়ে কোনো রাম-বামদের উসকানি আর আস্ফালন সহ্য করা হবে না।’

অনতিবিলম্বে আস্ফালন বন্ধ করা না হলে তৌহিদি জনতা ষড়যন্ত্রকারীদের সমুচিত জবাব দিতে বাধ্য হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বাংলাদেশের জন্য চরম হুমকি। এই সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা বাংলাদেশ নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বানোয়াট ও ডাহা মিথ্যা অভিযোগ করে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুণ্ন করেছিল। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নকারী এ উগ্র সংগঠন আবারও মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে চাচ্ছে। দেশে অরাজকতা তৈরির পাঁয়তারা করছে। সরকারকে এদের বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।’

বাবুনগরী আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে সব ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান নিশ্চিত রয়েছে। মুসলমানরা কখনো হিন্দু ও সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা করেনি। কেবলমাত্র শান্তির ধর্ম ইসলামই সংখ্যালঘুদের সার্বিক নিরাপত্তা এবং সুখ-সমৃদ্ধি নিশ্চিত করেছে