সরকারি টাকা আত্মসাতের প্রতিবাদ করায় প্রাণনাশের হুমকি

প্রকাশিত: ১২:২১ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২০

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নের কান্দি ছমেদ নগর পূর্বপাড়া জামে মসজিদ ও কবরস্থান উন্নয়নে জেলা পরিষদ কর্তৃক সরকারি বরাদ্দের টাকা আত্মসাতের প্রতিবাদ করলে বুলবুল নামে এক স্থানীয় বাসিন্দাকে প্রাণনাশের অভিযোগ উঠেছে মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও ইউপি সদস্যের  বিরুদ্ধে।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) নিরাপত্তা চেয়ে মসজিদ কমিটির ৫ জনের নাম উল্লেখ করে  সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন কান্দি ছমেদ নগর গ্রামের বাসিন্দা গোলাম মোস্তফা বুলবুল নামের এক বাসিন্দা।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,রঙ্গারচর ইউনিয়নের কান্দি ছমেদ নগর গ্রামের পূর্বপাড়া জামে মসজিদের উন্নয়নে জেলা পরিষদ কর্তৃক দুই লাখ টাকার ও কবরস্থান উন্নয়নে এক লাখ টাকা   গ্রহণ করেন মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় এক মহিলা সদস্য।

মসজিদ ও কবরস্থানে কাজ না করে সকল টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ করা হয়  মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল করিম,সদস্য  আব্দুর রহমান, হারুন মিয়া, ডাক্তার কাজী, স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহানারা বেগমের বিরুদ্ধে । যা গ্রামের সচেতন নাগরিক অবগত আছেন বলে উল্লেখ করা হয় এই অভিযোগে।

অভিযোগের আরও উল্লেখ করা হয়, মসজিদ ও কবরস্থান উন্নয়নের  টাকা আত্মসাতের বিষয়ে প্রতিবাদ করলে বিবাদীগণ গ্রামের নিরীহ বুলবলকে প্রাণনাশের হুমকিসহ গ্রাম ছাড়া করার ভয়ভীতি প্রদর্শণ করে আসছেন বলে উল্লেখ করা হয়।এমতাবস্থায় আইনের আশ্রয় কামনা করেছেন ভুক্তভোগী গোলাম মোস্তফা বুলবুল।

অভিযুক্ত ছমেদ নগর পূর্বপাড়া জামে মসজিদে মসজিদ পরিচালনা  কমিটির সভাপতি  আব্দুল করিম  তাঁর বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি আল্লাহর রাস্তায় লাখ লাখ টাকা দান করি। আমি কেনও টাকা আত্মসাৎ করবো। আর বুলবুলকে সমাজ থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। যে ব্যক্তি সমাজের বিরুদ্ধে অবস্থান তারে সমাজ থেকে বাদদ দেয়া হবে না তো কি করা হবে? এইভাবেই ক্ষোভ প্রকাশ করেস  তিনি।
স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহানারার মোবাইল ফোনে যোগাযেগ করা হলে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে জানতে সদর থানার ডিউটি অফিসার এসআই কামরুল বলেন প্রাথমিকভাবে অভিযোগটি গ্রহণ করা হয়েছে। ওসি স্যার বিষয়টি দেখবেন।