লাগামহীন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম: অসহায় মধ্যবিত্ত পরিবার

প্রকাশিত: ১:১৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসে যখন মানুষ অসহায়। চাকরি হারিয়ে মানুষ নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রীতিমতো ধ্বস নেমেছে। ঠিক তখনই হঠাৎ করে লাগামহীন হয়ে উঠেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম। অসহনীয় উত্তাপ বইছে চাল, ডাল, আটা, মাংস, শাকসবজি, তেল, পেঁয়াজ, মসলাসহ বিভিন্ন পণ্যের দামে। হঠাৎ করে বাড়ছে আলু, পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের দাম। যার ফলে মারাত্মক সমস্যায় পড়ছেন মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্ত ও সীমিত আয়ের মানুষ।

অস্বাভাবিক এই দাম বৃদ্ধির পেছনে যৌক্তিক কোনো কারণ নেই। সিন্ডিকেটের কারসাজির কারণেই মূলত এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, সরকারের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কোল্ড স্টোরেজ পর্যায়ে প্রতি কেজি আলুর দাম ২৩ টাকা, পাইকারি পর্যায়ে ২৫ টাকা এবং খুচরা পর্যায়ে ৩০ টাকা নির্ধারণ করে দেওয়া হয় প্রথম ধাপে। দ্বিতীয় ধাপে মন্ত্রী আর ৫টাকা বাড়িয়ে বাজার ধর নির্ধারণ করেন প্রতি কেজি আলু ৩৫ টাকা ধরে বিক্রি করার জন্যে। কিন্তু সরকারের বেঁধে দেওয়া বাজার ধর মানছেন না স্থানীয় ব্যবসায়ীর।

শুক্রবার সিলেটের খুচরা বাজার ঘুরে দেখা যায়, আলু বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা, দেশি পেয়াজ ৭৫-৮০ টাকা, পাকিস্তানী পেয়াজ ৬০-৭০ টাকা, আদা গত সাপ্তাহে ছিল ৮০-৮৫ টাকা বর্তমানে ৭০-৮০ টাকা, দেশি রসুন ৮৫ টাকা, কাঁচা মরিচ ২৫০-৩০০টাকা, টমেটো প্রতি কেজি ৮০-১০০ টাকা, ফরাসের বিচি ৮০-১০০।

খুচরা বাজরের একজন ব্যবসায়ী বলেন, পাইকারী বাজারগুলোতে আলুর দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় আমার ৪০-৫০ টাকা ধরে বিক্রি করতে হচ্ছে। কি কারণে হঠাৎ করে এত টাকা বৃদ্ধি পেল জানতে চাইলে তিনি বলেন, শুনছি আড়তে আলুর সংকট রয়েছে। তাই দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।