মৌলভীবাজারে ২ ভূয়া ডাক্তারের কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ১০:৫১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ মৌলভীবাজারের কুসুমবাগ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে অবৈধ ভাবে ভুয়া ডাক্তার সেজে প্রতারণার সময় ২ ভুয়া ডাক্তারকে আটক করে র‌্যাব-৯। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২ ভুয়া ডাক্তারকে অর্থ ও কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

সোমবার (১৯ অক্টোবর) দুপুর ১টা থেকে ২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত র‌্যাব-৯ সিপিসি-২( শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প) এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন কোম্পানি কমান্ডার মেজর আহমেদ নোমান জাকি ও এএসপি আফসান-আল-আলম।

দণ্ডপ্রাপ্তদের নাম ও ঠিকানা- মো. শফিকুল ইসলাম (শান্ত) (৪৬), পিতা- মৃত খোরশেদ মিয়া, সাং-ইউসুফ নগর, থানা-মুরাদনগর, জেলা-কুমিল্লা ও খালেদা আক্তার (৩৫), স্বামী-শফিকুল ইসলাম, সাং-ইউসুফ নগর, থানা-মুরাদনগর, জেলা-কুমিল্লা।

র‌্যাব জানায়, মৌলভীবাজার জেলার সদর থানাধীন কুসুমবাগ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে অবৈধ ভাবে ভুয়া ডাক্তার সেজে প্রতারণার সময় মো. শফিকুল ইসলাম (শান্ত) (৪৬) ও খালেদা আক্তারকে (৩৫) আটক করেন। তারা সম্পর্কে স্বামী ও স্ত্রী। দীর্ঘদিন ধরে ভুয়া ডাক্তার সেজে প্রতারণা করে আসছিল। তাদের ভুয়া কাগজপত্র, ভুয়া লাইসেন্সগুলো জব্দ করা হয়। আটককৃত আসামিরা অপরাধ ভ্রাম্যমাণ আদালতের সম্মুখে স্বীকার করে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট শফিকুল ইসলাম ( ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, মৌলভীবাজার সদর, মৌলভীবাজার) মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০ এর ২৮(১) ও ২৯(১) লঙ্ঘন করায় মো. শফিকুল ইসলাম শান্তকে (৪৬) ৩০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও খালেদা আক্তারকে (৩৫) ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করে।

এই দুই ভুয়া ডাক্তারকে এর পূর্বেও মোবাইলকোর্ট ১৫ দিন কারাদণ্ড প্রদান করেছিল বলে জানায় র‌্যাব।