কুষ্টিয়ায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন

প্রকাশিত: ৫:৫২ অপরাহ্ণ, জুন ৯, ২০২০

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি।

কুষ্টিয়ায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলে কৃষকদের ন্যায্য মূল্য পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে। তবে বোরো ধানের আবাদ দেরীতে হওয়ায় সরকারের ধান চাল ক্রয়ের টার্গেট পূরণ হতে আগষ্ট মাসের শেষ পর্যন্ত লাগবে বলে জানিয়েছেন জেলা খাদ্য অধিদপ্তর। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার কৃষক নেতা রেজোওয়ান আলী জানান, কুষ্টিয়ায় এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষকরা বেশ খুশী। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, কৃষকদের মুখে হাসি ফোটাতে সরকার কৃষকদের কাছ ধান কিনবে। কুষ্টিয়া সদর, কুমারখালী,দৌলতপুরে ইতিমধ্যে লটারীর মাধ্যমে ধান ক্রয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এই প্রক্রিয়ায় প্রান্তিক কৃষকদের কাছ ধান ক্রয় সম্ভব হবে বলে মনে করছেন জেলা প্রশাসন। এদিকে চাল ক্রয়ের জন্য জেলা খাদ্য অফিস ৫৩৯ জন মিলারের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। চালের প্রতি কেজি সরকারী মূল্য ধরা হয়েছে ৩৬ টাকা এবং ধানের সরকারী মূল্য ধরা হয়েছে ২৬ টাকা। গত ২৬ এপ্রিল থেকে ধান চাল ক্রয় শুরু হয়েছে। আগামী ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত এই ধান চাল ক্রয় চলবে বলে জানিয়েছেন কুষ্টিয়ার জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ মনোয়ার হোসেন। ইতিমধ্যে ২ হাজার মেট্রিকটন চাল মিলারদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। ধান ক্রয়ের টার্গেট করা হয়েছে ৪ হাজার ৫ শ ৪১ মেট্রিকটন। আর সিদ্ধ চাল ক্রয়ের টার্গেট করা হয়েছে ৩৪ হাজার ৬ শ ২ মেট্রিক টন। বোরো ধান দেরীতে উঠায় দেরীতে সংগ্রহ শুরু হয়েছে। নিদিষ্ট সময়ে টার্গেট পূরণ হয়ে যাবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন জেলা খাদ্য অফিস। চাল সংগ্রহ ধীর গতিতে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ মনোয়ার হোসেন জানান, এবার বোরো ধান দেরীতে উৎপাদন হওয়ায় দেরীতে কৃষকের ঘরে ধান উঠছে। এছাড়া খোলা বাজারেও ধানের দাম বিগত সময়গুলির চাইতে বেশী। এব্যাপারে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (জেনারেল) মুহাম্মদ ওবায়দুর রহমান জানান, ধান ক্রয় প্রক্রিয়া লটারীর মাধ্যমে সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করা হয়েছে। প্রান্তিক কৃষকরা এবার সঠিক ধানের মূল্য পাবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।